এবছরেই ‘প্রধানমন্ত্রী’ কুণালজিৎ

2,764 total views, 2 views today

ভারতবর্ষের মতো বহু রাজনৈতিক দল বিশিষ্ট দেশে সবেমাত্র সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে। বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি এবারেরও তাদের আধিপত্য কায়েম করেছে। আর এই বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে দ্বিতীয়বারের জন্য প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসেছেন নরেন্দ্র মোদী। এবারের লোকসভা নির্বাচনে বেশ কয়েকটি সিনেমা এক্স ফ্যাক্টর এর কাজ করেছে। তাদের একটা বড় অংশের প্রভাব নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিশেষভাবে লক্ষ্য করা গেছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জীবন থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে পরিচালক সুপ্রিয় সিনহা তৈরি করছেন তার ছবি ‘প্রধানমন্ত্রী‘। প্রধানমন্ত্রীর নাম ভুমিকায় অভিনয় করছেন বাংলা ছবি এবং টেলিভিশনের পরিচিত মুখ কুণালজিৎ মিত্র। খুব দরিদ্র পরিবারের ছেলে অগ্নীশ্বর। ছোটবেলা থেকেই সে স্বপ্ন দেখে দেশ মা’কে সেবা করার। সেক্ষেত্রে তার স্বপ্নের কাছে দারিদ্রতা কখনই বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে না। মানবাধিকার কমিশনের আওতায় কাজ করতে এসে রাজনীতিতে হাতে খড়ি হয় অগ্নীশ্বরের এবং তিনি ধীরে ধীরে রাজনীতির মারপ্যাঁচ বুঝে নিয়ে একজন সফল রাজনীতিবিদ হয়ে ওঠেন। কাল ক্রমে তিনি রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে জয় লাভ করে মুখ্যমন্ত্রী হন। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তার বিপুল জনপ্রিয়তায় ভর করে তিনি একদিন প্রধানমন্ত্রীর আসনে আসীন হন। দরিদ্র পরিবারের সাধারন একটি ছেলে থেকে দেশের প্রধান মন্ত্রী এই পথচলাটা যথেষ্ট কঠিন। অনেক চড়াই-উতরাই, বন্ধুর পথ পেরিয়ে অগ্নীশ্বর পৌঁছে যান প্রধানমন্ত্রীর আসনে। এই কঠিন পথচলাতে তার ওপর আঘাত,হামলাও কম হয়নি। মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়েও তিনি তার লক্ষ্যে অবিচল থাকেন। অগ্নীশ্বর কি পারবেন তার লক্ষ্যে সফল হতে? প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের জন্য কাজ করতে? উত্তর পেতে অবশ্যই দেখতে হবে ‘প্রধানমন্ত্রী‘ সিনেমাটি।

প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করা কুণালজিৎ বললেন,
“প্রধানমন্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করাটা আমার কাছে খুব গর্বের কারণ যে কোন জীবিত কিংবদন্তির চরিত্রে অভিনয় করা সত্যিই একটা বড় চ্যালেঞ্জ। আমি চেষ্টা করেছি আমার সেরাটা দিতে।”

বাস্তবের প্রধানমন্ত্রীর মতো সিনেমার এই প্রধানমন্ত্রী দর্শকদের মনে কতটা দাগ কাটতে পারেন এখন সেটাই দেখার। এই বছরের শেষের দিকে সিনেমা হলে মুক্তি পাবে ‘প্রধানমন্ত্রী‘।

Reach The Perspective