৭২ বছরের পুরনো প্রথা ভেঙ্গে চমক নির্মলার

1,514 total views, 2 views today

বাজেট পেশের আগেই নয়া চমক নির্মলা সীতারমণের। চিরাচরিত ঢঙে ব্রিফকেস নয়, লাল শালু কাপড়ে মুড়ে ‘বহি খাতা’ হাতে নিয়ে সংসদে প্রবেশ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। এত দিন পর্যন্ত বাজেট পেশের আগে চামড়ার ব্রিফকেস হাতেই দেখা গেছে প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীদের। এক্ষেত্রে ৭২ বছরের পুরনো প্রথা ভাঙলেন তিনি। এপ্রসঙ্গে দেশের প্রথম পূর্ণ সময়ের মহিলা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বললেন, ‘‘এটা ভারতীয় ঐতিহ্য। পশ্চিমী দাসত্ব প্রথা ঝেড়ে ফেলার প্রতীক এটা। এটা বাজেট নয়, বহি খাতা’’।

অতীতে মহিলা অর্থমন্ত্রী হিসেবে বাজেট পেশ করার নজির ছিল প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর। আজ দ্বিতীয় মোদি সরকারের প্রথম বাজেট পেশের দিনে সেই স্মৃতিই ফিরিয়ে আনলেন নির্মলা সীতারামণ। প্রথম পূর্ণাঙ্গ মহিলা অর্থমন্ত্রী হিসেবে শুক্রবার বাজেট পেশ করলেন নির্মলা সীতারামণ। সকাল ১১টায় ভাষণ শুরু করেন নির্মলা। লোকসভায় দীর্ঘ ২ ঘণ্টা ১৭ মিনিটের বক্তব্য রাখলেন তিনি। ইংরেজি ভাষা ছাড়াও অর্থমন্ত্রীর ভাষণে ছিল হিন্দি, তামিল, উর্দু ও সংস্কৃতও। সংসদে তাঁর মুখে শোনা গেল চাণক্যের শ্লোক। এখানেই শেষ নয়, আরও চমক ছিল নির্মলা সীতারামণের ভাষণে। বাজেট পেশের সময় তিনি উর্দু কবি মঞ্জুর হাসমির জনপ্রিয় শায়েরি “ইয়াকিন হো তো কোই রাস্তা নিকলতা হ্যায়, হাওয়া কি ওত ভি লে কর চিরাগ জ্বলতা হ্যায়” শোনা যায় অর্থমন্ত্রীর মুখে। যার সারমর্ম হল, বিশ্বাস থাকলে রাস্তা নিশ্চয়ই বেরিয়ে আসে। এছাড়া চাণক্যের বাণী শুনিয়ে নির্মলা সাংসদদের বোঝানোর চেষ্টা করেন, “প্রচেষ্টায় যদি অবিচল থাকা যায় তাহলে কাজ সম্পূর্ণ হবেই”।

বাজেটে নারী শক্তির উত্থানের পক্ষে সওয়াল করলেন অর্থমন্ত্রী। বললেন নারীদের ক্ষমতায়নে আরও বেশি জোর দেওয়া হবে। এছাড়া স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের ১ লক্ষ টাকা ঋণের সংস্থান করার কথা ঘোষণা করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।

গতকাল তিনি যে আর্থিক সমীক্ষা পেশ করেছেন, তাতে বলা হয়েছে ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষে ভারত বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বৃদ্ধি হওয়া অর্থনীতিই রয়েছে। যদিও জিডিপি বৃদ্ধির হার ২০১৭-১৮ বছরের তুলনায় ৭.২ শতাংশ থেকে কিছুটা হ্রাস পেয়ে ২০১৮-১৯ বর্ষে হয়েছে ৬.৮ শতাংশ হয়েছে।

ছবি : ইন্টারনেট

Reach The Perspective